বৃহস্পতিবার, জানুয়ারী ২৬, ২০২৩
1.1 C
Toronto

Latest Posts

জগন্নাথ হল এলামনাই অ্যাসোসিয়েশনের অভিষেক

- Advertisement -
নবগঠিত বোর্ড অফ ডিরেক্টরসের সদস্যদেরকে দর্শকদের সাথে পরিচয় করিয়ে দেন জগন্নাথ হলের দুই প্রাক্তনী সমরেন্দ্র ঘোষ এবং সঞ্জিত দাস

গত ১৪ জানুয়ারি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের জগন্নাথ হলের প্রাক্তন ছাত্রদের এলামনাই এসোসিয়েশনের নতুন বোর্ড অফ ডিরেক্টরসদের অভিষেক অনুষ্ঠিত হয়। কালিদাস পাল সভাপতি, বাদল ঘোষ সহ-সভাপতি এবং শৈবাল চৌধুরীকে সাধারণ সম্পাদক করে ৯ সদস্য বিশিষ্ট এক কমিটি গঠন করা হয়। ২০২৩-২৪ সালের জন্য নির্বাচিত এই কমিটির পরিচিতি অনুষ্ঠানটি বিপুল সংখ্যক প্রাক্তন শিক্ষার্থী এবং তাদের পরিবারের মানুষদের এক মিলনমেলায় পরিণত হয়। টরন্টোর ডোম এভিনিউয়ে অবস্থিত বাংলাদেশ কানাডা হিন্দু কালচারাল সোসাইটি মিলনায়তনে উপস্থাপিত হয় মনোগ্রাহী এক সাংস্কৃতিক আয়োজন। বিকেল সাড়ে পাঁচটা থেকে রাত এগারোটা পর্যন্ত এই আয়োজনে উপস্থিত হয়েছিলেন কয়েকজন আমন্ত্রিত অতিথিও।

নবগঠিত বোর্ড অফ ডিরেক্টরসের সদস্যদেরকে দর্শকদের সাথে পরিচয় করিয়ে দেন জগন্নাথ হলের দুই প্রাক্তনী সমরেন্দ্র ঘোষ এবং সঞ্জিত দাস। উল্লেখ করা যেতে পারে যে, সমরেন্দ্র ঘোষ এবং সঞ্জিত দাস দুজনেই চলতি কমিটি নির্বাচনকালে প্রধান কমিশনার ও কমিশনারের দায়িত্ব পালন করেন। পরিচয় পর্ব শেষে নবগঠিত কমিটির পক্ষে বক্তব্য রাখেন সভাপতি কালিদাস পাল।
সন্ধ্যা সাড়ে সাতটায় স্টেজে মূল অনুষ্ঠান শুরু হয়। বাংলাদেশ ও কানাডার জাতীয় সংগীত দিয়ে শুরু হয় সে আয়োজন। উপস্থিত সকলে দাঁড়িয়ে দুই দেশের জাতীয় সংগীতকে সম্মান প্রদর্শন করেন। অনুষ্ঠানটি কয়েকটি পর্বে বিভক্ত ছিল। করোনাকালীন সময়ে প্রাক্তন যে ছাত্ররা এবং তাদের পরিবারের যে সদস্যরা মৃত্যুবরণ করেছেন তাদের স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে এক মিনিট নীরবতা পালন করা হয়।

- Advertisement -

অনুষ্ঠানে শিশু-কিশোরদের নৃত্য পরিবেশনা উপস্থিত দর্শকদেরকে আনন্দ দেয়। এতে অংশ নেয় শিশু শিল্পী দীপাঞ্জলি দেবনাথ, সুচেতা পুরু, পিয়ান্তি ভৌমিক ও মম সাহা। শিশু-কিশোর শিল্পীদের নৃত্য পরিবেশনার পর নন্দিত নৃত্যশিল্পী চিত্রা দাস মনমুগ্ধকর সেমি ক্লাসিক্যাল নৃত্য পরিবেশন করেন।

এরপর দরাজ গলায় রবীন্দ্রনাথের কবিতা আবৃত্তি করেন জগন্নাথ হলের প্রাক্তন ছাত্র চয়ন দাস। সংগীত পরিবেশনাতেও চয়ন দাস অংশ নেন। সুদীপ্তা সাহাও সংগীত পরিবেশন করেন। তবলায় সঙ্গত করেন সংস্কৃতি কর্মী সুব্রত পুরু।

সবশেষে আসেন আমন্ত্রিত সংগীত শিল্পী মহুয়া পাড়িয়াল। সুরেলা কন্ঠে একের পর এক মহুয়ার পরিবেশনা উপস্থিত দর্শকদেরকে মাতিয়ে রাখে। প্রায় দুই ঘন্টা ধরে মহুয়া তার পরিবেশনা অব্যাহত রাখেন।

পুরো অনুষ্ঠানটি উপস্থাপনায় ছিলেন গার্গী লাহিড়ী। শব্দ ব্যবস্থাপনার দায়িত্বে ছিলেন ডিজে ইমন দাস।

 

- Advertisement -

Latest Posts

Don't Miss

Stay in touch

To be updated with all the latest news, offers and special announcements.