শুক্রবার, জুলাই ১৯, ২০২৪
20.2 C
Toronto

Latest Posts

পার্লামেন্টের প্রধান প্রশাসনিক দায়িত্বে বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত শায়লা আনোয়ার

- Advertisement -
শায়লা আনোয়ার

কানাডার পার্লামেন্টের সর্বোচ্চ প্রশাসনিক পদে নিয়োগ পেয়েছেন বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত শায়লা আনোয়ার। সেনেটের সঙ্গে পরামর্শক্রমে তাকে নতুন ক্লার্ক অব দ্য সেনেট এবং ক্লার্ক অব দ্য পার্লামেন্ট হিসেবে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে, যা ৬ মে ২০২৪ থেকে কার্যকর হবে। তার এই নিয়োগকে স্বাগত জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো।

শায়লা আনোয়ার একজন সম্মানীত সরকারি কর্মকর্তা এবং সেনেটে ১৫ বছরের বেশি কাজের অভিজ্ঞতা রয়েছে তার। রেড চেম্বারে একাধিক নেতৃত্বের ভূমিকা পালন করেন তিনি। এর মধ্যে রয়েছে মূখ্য ক্লার্ক, উপ মুখ্য ক্লার্ক এবং সেনেট কমিটিজ পরিদপ্তরের প্রসিডিউরাল ক্লার্ক। কানাডার সংসদীয় ব্যবস্থায়ও তিনি একজন সম্মানীত বিশেষজ্ঞ। অতি সম্প্রতি তিনি কমিটিজ অব সেনেটের ক্লার্ক অ্যাসিস্ট্যান্ট হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন।

- Advertisement -

সেনেটের প্রধান প্রশাসনিক কর্মকর্তা হিসেবে শায়লা আনোয়ার সেনেটের প্রাত্যহিক কর্মকা- দেখভাল করবেন। সেই সঙ্গে সব ধরনের লেজিসলেটিভ প্রক্রিয়ায় সহায়তা দেবেন। এর মধ্যে রয়েছে নতুন সেনেটরদের শপথ থেকে শুরু করে সংসদীয় কার্যক্রম সম্পর্কে স্পিকারকে পরামর্শ এবং আইনের ব্যাখ্যা প্রদান।

সংসদের ক্লার্ক হিসেবে শায়লা আনোয়ার কানাডার সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ আইনি মোহাফেজখানা পরিচালনা, দেখাশোনা ও ব্যবস্থাপনা নিশ্চিত করবেন।

তার এই নিয়োগের ব্যাপারে কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো বলেছেন, শায়লা আনোয়ার ব্যতিক্রমী সরকারি কর্মকর্তা, যার রয়েছে সেনেট ও লেজিসলেটিভ পদ্ধতির ব্যাপারে সুগভীর ধারণা। আমি আত্মবিশ^াসী যে, তার দক্ষতা ও অভিজ্ঞতা দিয়ে তিনি কানাডিয়ানদের জন্য রেড চেম্বারকে আরও বেশি কার্যকরী করতে পারবেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, বেশ কয়েক বছর ধরে শায়লা আনোয়ার দায়িত্বশীলতার সঙ্গে সেনেটে নেতৃত্বের ভূমিকা পালন করেছেন। সেই সঙ্গে কানাডিয়ানদের সেবায় প্রতিষ্ঠানটিকে সূচারুভাবে পরিচালিত হতে তার জ্ঞান ও দক্ষতা কাজে লাগিয়েছেন। আমার বিশ্বাস, সেনেটের কার্যক্রম ও লেজিসলেটিভ পদ্ধতি সম্পর্কে তার গভীর বোঝাপড়া নতুন ভূমিকায় তাকে ভালো করার ক্ষেত্রে সহায়তা করবে, যার সুফলভোগী হবেন সব সেনেটর।

শায়লা আনোয়ার একজন বিশ^স্ত সরকারি কর্মকর্তা এবং তার রয়েছে সেনেটের কর্মপন্থা ও চর্চার ব্যাপারে বিস্তৃত অভিজ্ঞতা। প্রসিডিউরাল ক্লার্ক হিসেবে ২০০৭ সালে তিনি সেনেট কমিটিজ পরিদপ্তরে যোগ দেন। এরপর তিনি ধারাবাহিকভাবে সেনেট প্রশাসনের আরও জ্যেষ্ঠ ভূমিকার দায়িত্ব পান। জ্যেষ্ঠ পদে প্রথমে তিনি দায়িত্ব পান সেনেট কমিটিজ পরিদপ্তরের উপ মূখ্য ক্লার্কের। এরপর দায়িত্ব পান মূখ্য ক্লার্কের। বর্তমানে তিনি সেনেট কমিটিজ পরিদপ্তরের ক্লার্ক অ্যাসিস্ট্যান্ট হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। সেনেট এবং পার্লামেন্টের ক্লার্কের পক্ষে সেনেট কমিটির সব ধরনের কাজ দেখভাল করছেন তিনি। এক্ষেত্রে তিনি সেনেটের স্পিকার, কমিটির চেয়ার এবং অন্য সেনেটরদের সংসদীয় ও আইনসংক্রান্ত বিভিন্ন নির্দলীয় প্রসিডিউরাল পরামর্শ দিয়ে সহায়তা করে থাকেন। টেবিল অফিসার হিসেবে তিনি সেনেটের অধিবেশনে সহায়তা করে থাকেন। সেই সঙ্গে সেনেটের কর্মপন্থা সংক্রান্ত একাধিক বিষয়ে পরামর্শ দিয়ে থাকেন।

সেনেট প্রশাসনের পক্ষে কৌশলগত ও কর্পোরেট বিষয়ে দিক-নির্দেশনা প্রদানে দক্ষ শায়লা আনোয়ার অভ্যন্তরীণ গুরুত্বপূর্ণ বিষয় এবং বেশ কিছু কর্পোরেট কমিটি ও উপকমিটিতে সেনেটরদের কাজে সরাসরি সহায়তা দিয়ে থাকেন। সেনেটের স্থায়ী কমিটি ও উপকমিটির পাশাপাশি হাউস অব কমন্সের স্থায়ী ও বিশেষ যৌথ কমিটির দায়িত্বপ্রাপ্ত মূখ্য ক্লার্ক ও প্রসিডিউরাল ক্লার্কদের সমন্বয়ে গঠিত একটি টিমও ব্যবস্থাপনা করে থাকেন তিনি।

কানাডিয়ান সংসদীয় ব্যবস্থায় সেনেটের ভূমিকার বিষয়ে দক্ষ শায়লা আনোয়ার দুই ভাষায় যোগাযোগে পারদর্শী। তিনি সংসদীয় রীতিনীতি ও চর্চার বিষয়ে জাতীয় ও আন্তর্জাতিক বিভিন্ন সম্মেলন ও সেমিনারে বক্তব্য দিয়েছেন।
বাংলাদেশের ঢাকায় জন্মগ্রহণকারী শায়লা আনোয়ারের বেড়ে ওঠা ও শিক্ষাগ্রহণ অটোয়াতে। কার্লেটন বিশ^বিদ্যালয় থেকে তিনি ইংরেজি ও রাষ্ট্রবিজ্ঞানে ব্যাচেলর অব আর্টস (হাই অনারস) ডিগ্রী সম্পন্ন করেছেন।

- Advertisement -

Latest Posts

Don't Miss

Stay in touch

To be updated with all the latest news, offers and special announcements.