শুক্রবার, মে ২০, ২০২২
11.2 C
Toronto

Latest Posts

কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন ও চিকিৎসায় ৫.৩ বিলিয়ন ডলারের বাজেট

- Advertisement -
ফাইল ছবি

কোভিড-১৯ সংগ্রহ ও চিকিৎসায় হেলথ কানাডার ৫ দশমিক ৩ বিলিয়ন ডলারের বাজেট গত ডিসেম্বর অনুমোদন পেয়েছে। এর মধ্যে ৫ বিলিয়ন ডলার চলতি অর্থবছরের বাজেট থেকে আগামী বাজেটে স্থানান্তর করা হয়েছে। ১ এপ্রিল থেকে কানাডায় ২০২১-২১ অর্থবছর শুরু হচ্ছে। সরবরাহ পাওয়া ভ্যাকসিনের মূল্য পরিশোধ অব্যাহত রাখতেই এ সিদ্ধান্ত বলে কানাডার জনস্বাস্থ্য এজেন্সি জানিয়েছে।

২৪ কোটি ডোজের ক্রয়াদেশ দিলেও মার্চের শেষ নাগাদ মাত্র ৬৫ লাখ ডোজের সরবরাহ পাবে কানাডা। এ ভ্যাকসিনের মূল্য পরিশোধও রহস্যাবৃত। কারণ, ভ্যাকসিন ক্রয়ের চুক্তি করা হয়েছে গোপনীয় ধারায় এবং এ ধারায় প্রতি ডোজের জন্য কি পরিমাণ অর্থ ব্যয় করা হচ্ছে তা প্রকাশ করার সুযোগ নেই।

- Advertisement -

পাঁচটি কোম্পানির সঙ্গে ১৫ কোটি ৪০ লাখ ডোজের চুক্তি করার পর ক্রয়-সংক্রান্ত মন্ত্রী অনীতা আনান্দ গত সেপ্টেম্বরে বলেছিলেন, এজন্য ১ বিলিয়ন ডলার বরাদ্দ রাখা হয়েছে।

কোভ্যাক্স থেকে দেড় কোটি ডোজ ভ্যাকসিন ক্রয়ের জন্য বরাদ্দ রাখা হয় আরও ২২ কোটি ডলার। এর কিছুদিন পরই অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার ২ কোটি এবং মেডিকাগোর ২ কোটি ডোজ ভ্যাকসিনের ক্রয়াদেশ দেওয়া হয়। এর দাম ১ বিলিয়ন ডলারের মধ্যে ধরা হয়নি। ফাইজার-বায়োএনটেকের কাছে ক্রয়াদেশ দ্বিগুণ অর্থাৎ ৪ কোটি ডোজে উন্নীত করার পর মর্ডানার কাছে ক্রয়াদেশও ২ কোটি থেকে বাড়িয়ে ৪ কোটি ৪০ লাখে উন্নীত করেছে সরকার। এর বাইরে সেরাম ইনস্টিটিউটের উৎপাদিত অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার ২ কোটি ডোজের ক্রয়াদেশও দিয়েছে কানাডা। তবে বরাদ্দকৃত ৫ বিলিয়ন ডলারের পুরোটাই ভ্যাকসিন ক্রয়ে ব্যয় হবে নাকি তা দিয়ে কোভিড-১৯ এর চিকিৎসায় ব্যবহৃত অন্যান্য ওষুধ কেনা হবে সেটি পরিস্কার করেনি পাবলিক হেলথ এজেন্সি।

অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার ৫ লাখ ডোজ ভ্যাকসিন বুধবার সকালেই কানাডায় পৌঁছেছে। পাশাপাশি ফাইজার-বায়োএনটেকের ২০ লাখ ও মডার্নার ৬ লাখ ৩০ হাজার ডোজ ভ্যাকসিনও বুঝে পেয়েছে কানাডা। মার্চের মাঝামাঝি নাগাদ জনসন অ্যান্ড জনসনের ভ্যাকসিনও অনুমোদন পাবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন ডা. সুপ্রিয়া আনান্দ।

কানাডা ভ্যাকসিনের দাম না জানালেও যুক্তরাষ্ট্র ও ইউরোপের দেশগুলো ডোজপ্রতি কি পরিমাণ মূল্য পরিশোধ করছে সে তথ্য প্রকাশ করেছে গণমাধ্যমগুলো। যুক্তরাষ্ট্র মডার্নার প্রতি ডোজ ভ্যাকসিন বাবদ ৪০ ডলার ও ফাইজার-বায়োএনটেকের প্রতি ডোজের জন্য ব্যয় করছে ২৫ ডলার। এছাড়া অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার প্রতি ডোজ ভ্যাকসিনের দাম পড়ছে ৪ থেকে ৫ ডলার, জনসন অ্যান্ড জনসনের ১২ ডলার এবং নোভাভ্যাক্সের ২০ ডলার।

তবে ইউরোপ অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকার প্রতি ডোজ ভ্যাকসিন ক্রয়ে ৩ ডলার, জনসন অ্যান্ড জনসনের ১৩ ডলার, ফাইজারের ১৮ ডলার এবং মডার্নার এক ডোজ ভ্যাকসিনের জন্য ২৭ ডলার খরচ করছে। যুক্তরাষ্ট্র ও ইউরোপ উভয়েই এসব ভ্যাকসিন নিয়ে গবেষণা ও তা উৎপাদনে বড় অংকের বিনিয়োগ করেছে। তবে কানাডা সব ভ্যাকসিনের বাজারমূল্য অনুযায়ী দাম পরিশোধ করছে বলে জানান অনীতা আনান্দ।

- Advertisement -

Latest Posts

Don't Miss

Stay in touch

To be updated with all the latest news, offers and special announcements.