বৃহস্পতিবার, আগস্ট ১৮, ২০২২
21.7 C
Toronto

Latest Posts

কনজার্ভেটিভ নেতা হওয়ার দৌড় শুরু

- Advertisement -
দলীয় নেতা নির্বাচনের দৌড় আনুষ্ঠানিকভাবে শুরু হওয়ার আগেই সম্ভাব্য সবার আগে নিজের ইচ্ছা জানিয়ে দিয়েছেন পয়লিয়েভর

কনজার্ভেটিভ পার্টির ফিন্যান্স ক্রিটিক পিয়েরে পয়লিয়েভর দলের পরবর্তী নেতৃত্বের দৌড়ে শনিবার নিজের নাম ঘোষণা করেছেন। সংসদে কনজার্ভেটিভ পার্টির অনেকেই তার প্রতি সমর্থন ব্যক্ত করেছেন। এর মধ্য দিয়ে দলের পরবর্তী নেতা নির্বাচনের দৌড় শুরু হলো বলে মনে করা হচ্ছে।

তিনিই প্রথম ব্যক্তি হিসেবে কনজার্র্ভেটিভ পার্টির নেতা হওয়ার ইচ্ছা পোষণ করলেন। দলের এমপিরা এরিন ও’টুলকে দলীয় নেতার পদ থেকে সরিয়ে দেওয়ার তিন দিনের মাথায় এ পদে নিজের ভিডিও বার্তায় ইচ্ছার কথা ঘোষণা করলেন পিয়েরে পয়লিয়েভর।
এ নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শনিবার সন্ধায় তিন মিনিটের একটি ভিডিও পোস্ট পলিয়েভর। ভিডিও বার্তায় কনজার্ভেটিভ পার্টিল নাম বা প্রতিযোগিতার বিষয়টি উল্লেখ করেন নি তিনি। শুধু বলেছেন, তিনি প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করতে চান।

- Advertisement -

শান্তভাবে তিনি বলেন, আমার মনে হয় সরকারের ব্যয় নাগালের বাইরে চলে যাচ্ছে এবং কানাডিয়ানদের বিশে^র বুকে সবচেয়ে মুক্ত মানুষ হিসেবে দেখতে চাই। উদাহরণ হিসেবে তিনি কম কর পরিশোধ, নিজস্ব মূল্যবোধে পরিবারকে লালন করা এবং স্বাস্থ্য এবং ভ্যাকসিনের বিষয়ে ব্যক্তির স্বাধীনতা নিশ্চিত করার কথা বলেন। সেই সঙ্গে ব্যবসার ওপর কম নিয়ন্ত্রণ এবং আগ্নেয়াস্ত্র মালিকদের সমর্থনে কথাও বলেন তিনি।

লিবারেল সরকারের দিকে অভিযোগের আঙ্গুল তুলে পয়লিয়েভর বলেন, সরকার আইন মেনে চলা শিকারী ও কৃষকদের অন্যায়ভাবে লক্ষ্যবস্তুতে পরিণত করছে।

দলীয় নেতা নির্বাচনের দৌড় আনুষ্ঠানিকভাবে শুরু হওয়ার আগেই সম্ভাব্য সবার আগে নিজের ইচ্ছা জানিয়ে দিয়েছেন পয়লিয়েভর। যেহেতু দলের নির্বাচনী কমিটির অস্তিত্ব নেই তাই নির্বাচন সংক্রান্ত কোনো নিয়ম-কানুনও এখনও ঘোষণা করা হয়নি। এ অবস্থায় তহবিল সংগ্রহের কাজও শুরু করতে পারছেন না তিনি। তবে শনিবারের ভিডিওতে বেশ কিছু তালিকা দেন পলিয়েভর, যেখানে সমর্থকদের জন্য তাকে ভোট দেওয়ার জন্য সদস্যপদ কিনে সহায়তার সুযোগ রাখা হয়েছে।

পরবর্তী কনজার্ভেটিভ নেতা পদে আর যাদের নাম শোনা যাচ্ছে তাদের মধ্যে আছেন অন্টারিওর এমপি লেসলিন লুইস। ২০২০ সালের নেতৃত্বের নির্বাচনে তৃতীয় হয়েছিলেন তিনি। আরও আছেন ব্র্যাম্পটনের মেয়র প্যাট্রিক ব্রাউন এবং সাবেক প্রোগ্রেসিভ কনজার্ভেটিভ পার্টির নেতা ও কেবিনেট মন্ত্রী পিটার ম্যাককে। ২০২০ সালের নেতৃত্বের নির্বাচনী দ্বিতীয় হয়েছিলেন তিনি।

এদিকে পলিভের তার ইচ্ছার কথা ঘোষণার পরপরই বেশ কয়েকজন এমপি তার প্রতি সমর্থন ব্যক্ত করেছেন। অন্টারিওর এমপি মেলিসা ল্যান্টসম্যান এক টুইটে বলেন, শক্তিশালী ও ঐক্যবদ্ধ কনজার্ভেটিভ পার্টির জন্য পিয়েরে যে সঠিক ব্যক্তি এ ব্যাপারে কোনো প্রশ্ন নেই।
পয়লিয়েভরের প্রতি সমর্থন ব্যক্ত করেছেন ম্যানিটোবার দীর্ঘদিনের এমপি জেমস বেজান, অন্টারিওর এমপি মেরিলিন গ্ল্যাডু, সাবেক প্রধানমন্ত্রী স্টিভেন হারপারের মন্ত্রিসভার সদস্য জন বেয়ার্ড প্রমুখ।

৪২ বছর বয়সী পয়লিয়েভর তার বেশিরভাগ সময়ই কাটিয়েছেন পার্লামেন্ট হিলে। মাত্র ২৪ বছর বয়সে ২০০৪ সালে প্রথমবারের মতো নির্বাচনে অংশ নেন তিনি। হারপারের সময় তিনি বেয়ার্ডের পার্লামেন্টারি সেক্রেটারির দায়িত্ব পালন করেন। পরবর্তীতে গণতান্ত্রিক সংস্কার বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রীর দায়িত্বও পালন করেন।

 

- Advertisement -

Latest Posts

Don't Miss

Stay in touch

To be updated with all the latest news, offers and special announcements.