শুক্রবার, ডিসেম্বর ২, ২০২২
6 C
Toronto

Latest Posts

অন্টারিওর সাবেক শিক্ষকের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানীর অভিযোগ

- Advertisement -
মহামারির সময় কোভিড-১৯ নিয়ে মন্তব্য করার কারণে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বিপুল সংখ্যক ভক্ত তৈরি হয়েছিল অন্টারিওর সাবেক শিক্ষক রায়ান ইমগ্রান্ডের

মহামারির সময় কোভিড-১৯ নিয়ে মন্তব্য করার কারণে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বিপুল সংখ্যক ভক্ত তৈরি হয়েছিল অন্টারিওর সাবেক শিক্ষক রায়ান ইমগ্রান্ডের। তার বিরুদ্ধেই এবার শিক্ষার্থীদের শারীরিক ও মানসিকভাবে নির্যাতনের অভিযোগ উঠেছে।

অন্টারিও কলেজ অব টিচার্সের শুনানির নোটিশে অভিযোগের বিস্তারিত উল্লেখ করা হয়েছে। ২০১৫ সালে পাঁচজন শিক্ষার্থীর অভিজ্ঞতার কথা তুলে ধরা হয়েছে। পাঁচ শিক্ষার্থীই ইমগ্রান্ডের করানো কোচিং দলের সদস্য ছিল। গত ৮ জুন থেকে স্কুল থেকে পদত্যাগ করেন। এর আগে ইয়র্ক ক্যাথলিক স্কুল বোর্ডের মাধ্যমে নিয়োগ পেয়ে নিউমার্কেটে বিভাগীয় প্রধান হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন তিনি।

- Advertisement -

তবে মিগ্রান্ডের বিরুদ্ধে ফৌজদারি কোনো অভিযোগ আনা হয়নি। স্বঘোষিত বায়োস্ট্যাস্টিশিয়ান ইমগ্রান্ড মহামারির পুরো সময়জুড়ে প্রতিদিন কোভিড-১৯ এর বিশ্লেষণ প্রচার করতেন। এর ফলে টুইটারে তার ৯০ হাজার ফলোয়রা তৈরি হয়।
অভিযোগের বিষয়ে জানতে ইমগ্রান্ডের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলেও তিনি কোনো উত্তর দেন নি। আনীত অভিযোগ এখন পর্যন্ত আদালতের সামনে প্রমাণিত হয়নি এবং ডিসিপ্লিনারি শুনানির তারিখও নির্ধারণ হয়নি।

অভিযোগে বলা হয়েছে, শহরের বাইরের একটি টুর্নামেন্টে ইমগ্রান্ড চার শিক্ষার্থীর কাছে তাদের ব্যক্তিগত ফোন নম্বরে গ্রুপ মেসেজ পাঠান। মেসেজে তিনি শিক্ষার্থীদের একটি রিসোর্ট পুলে আমন্ত্রণ জানান। একটি মেসেজ ছিল এরকমÑপুলে চলে এসো। ফ্লোটি সঙ্গে এনে পুলে আমার সঙ্গে দেখা কর। শিক্ষার্থীরা যখন কক্ষে থাকতো ইমগ্রান্ড তখন শেষ সন্ধ্যায় অথবা খুব সকালে ডাকাডাকি করতেন।

নোটিশে ব্যক্তিগত পর্যায়ে শিক্ষার্থীদের সঙ্গে অশোভন যোগাযোগের বিষয়টিও তুলে ধরা হয়েছে। একবার নাকি তিনি জামা না পরা অবস্থায় তার একটি ছবি এক শিক্ষার্থীকে পাঠান। সেখানে তিনি বলে, আমাকে সুন্দর দেখাচ্ছে যদি না বলো তাহলে আমি কেঁদে ফেলবো।

আরেকটি অভিযোগে বলা হয়েছে, স্নানের পোশাক পরা অবস্থায় এক শিক্ষার্থীর ছবি চেয়েছিলেন অথবা ছবি গ্রহণ করেছিলেন। কোনো শিক্ষার্থী ইমগ্রান্ডের মেসেজের উত্তর না দিলে তিনি চিৎকরা করতে অথবা তাদেরকে তিরস্কার করতেন। পাশাপাশি ওই শিক্ষার্থীর স্কুল সূচি পরিবর্তন করে দেওয়ার জন্যও স্কুলের গাইডেন্স কাউন্সেলরকে মেইল করে অনুরোধ করতেন। এক বা একাধিক ক্ষেত্রে ইমগ্রান্ডের বিরুদ্ধে একই শিক্ষার্থীকে একাধিকবার তার গাড়িতে করে লং ড্রাইভে নিয়ে গেছেন।

ইয়র্ক ক্যাথলিক ডিস্ট্রিক্ট স্কুল বোর্ডের সঙ্গে এ ব্যাপারে যোগাযোগ করা হলেও তারা কোনো মন্তব্য করেনি। বলেছে, রায়ান ইমগ্রান্ড ইয়র্ক ক্যাথলিক স্কুল বোর্ডের কর্মী নয় এবং অন্টারিও কলেজ অব টিচার্সের বিবেচনায় থাকা কোনো বিষয়ে তারা মন্তব্য করবে না।

- Advertisement -

Latest Posts

Don't Miss

Stay in touch

To be updated with all the latest news, offers and special announcements.