শুক্রবার, এপ্রিল ১৯, ২০২৪
8.2 C
Toronto

Latest Posts

বাড়ি নির্মাণের লক্ষ্য অর্জন নিয়ে সংশয়

- Advertisement -
আবাসন বাজারে ভারসাম্য আনতে এক দশকেরও কম সময়ের মধ্যে বিপুল সংখ্যক বাড়ি নির্মাণ করতে হবে সতর্ক করে দিয়েছে কানাডা মর্টগেজ অ্যান্ড হাউজিং কর্পোরেশন (সিএমএইচসি)। যদিও নিজেদের লক্ষ্য অর্জন করা নিয়েই সংশয় রয়েছে

আবাসন বাজারে ভারসাম্য আনতে এক দশকেরও কম সময়ের মধ্যে বিপুল সংখ্যক বাড়ি নির্মাণ করতে হবে সতর্ক করে দিয়েছে কানাডা মর্টগেজ অ্যান্ড হাউজিং কর্পোরেশন (সিএমএইচসি)। যদিও নিজেদের লক্ষ্য অর্জন করা নিয়েই সংশয় রয়েছে।

বাড়ি নির্মাণ শুরুর যে গতি তা কেবল পিছিয়েই নেই, এটা ভুলপথে যাচ্ছে।

- Advertisement -

সিএমএইচসি গত বছর জানিয়েছিল, কানাডিয়ানদের আবাসন সক্ষমতা ফিরিয়ে আনতে ২০৩০ সালের মধ্যে ৫৮ লাখ বাড়ি নির্মাণের প্রয়োজন হবে। কিন্তু বর্তমানে দেশে বাড়ি নির্মাণের যে গতি তাতে করে ২০৩০ সাল নাগাদ ২৩ লাখ বাড়ি নির্মিত হতে পারে।

১৯ আগস্ট সংস্থাটি বলেছে, চলতি বছরের জুনের তুলনায় জুলাইয়ে বাড়ি নির্মাণ শুরুর গতি বার্ষিক ১০ শতাংশে নেমেছে। জুনে বাড়ি নির্মাণ সবচেয়ে গতি পেয়েছিল। মৌসুমি সমন্বয়ের ভিত্তিতে জুলাইয়ে নির্মাণ শুরু হয়েছে ২ লাখ ৫৪ হাজার ৯৬৬টি ইউনিটের। জুনে সংখ্যাটি ছিল ২ লাখ ৮৩ হাজার ৪৯৮।

সিএমএইচসির ডেপুটি চিফ অর্থনীতিবিদি আলেড অ্যাব লরওয়ার্থ বলেন, ক্রয়ক্ষমতা ফিরিয়ে আনতে ঠিক কত সংখ্যক বাড়ি নির্মাণের প্রয়োজন হবে সে সম্পর্কিত হালনাগাদ তথ্য পেতে কাজ করছে কর্পোরেশন। তবে এখন পর্যন্ত যে উপাত্ত তা আশাব্যঞ্জক নয়। গত বছর ২০৩০ সাল নাগাদ বাড়ি নির্মাণের যে প্রাক্কলন আমরা করেছিলাম এখন তা কমে এসেছে।

কানাডা কেন যথেষ্ট সংখ্যক বাড়ি নির্মাণ করতে পারছে না তার একাধিক কারণ রয়েছে। সুদের উচ্চ হার নির্মাণ শিল্পের ওপর বড় ধরনের প্রবাব ফেলছে। শ্রমিক সংকট ও পুরোনো নির্মাণ চর্চাও এতে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করছে।

এ অবস্থায় শীর্ষস্থানীয় নীতি বিশেষজ্ঞ ও খাত-সংশ্লিষ্ট প্রতিনিধিরা ফেডারেল সরকারকে নেতৃত্ব নেওয়ার এবং বাড়ি নির্মাণকে ফাস্ট-ট্র্যাক করতে সহায়তার আহ্বান জানিয়েছে। মঙ্গলবার প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে এই সুপারিম করা হয়েছে যে, সরকারি ও বেসরকারি নির্মাতা, বিশেষজ্ঞ, বিনিয়োগকারী ও শ্রমিক সংগঠনগুলোকে নিয়ে অটোয়া একটি শিল্প কৌশল তৈরি করতে পারে।
স্ট্যাটিস্টিকস কানাডার তথ্য অনুযায়ী, গত বছর থেকে নির্মাণ শিল্পে শ্রমিক সংকট কমে এলেও এ খাতে চলতি বছরের প্রথম প্রান্তিকে ৬৪ হাজার ৩১৫টি কর্ম শূন্য ছিল।

- Advertisement -

Latest Posts

Don't Miss

Stay in touch

To be updated with all the latest news, offers and special announcements.