রবিবার, ডিসেম্বর ৫, ২০২১
1 C
Toronto

Latest Posts

কানাডা ও আমেরিকায় ‘ঊনপঞ্চাশ বাতাস’ এর রেকর্ড শুভমুক্তি

- Advertisement -
১৯ নভেম্বর কানাডা ও আমেরিকার মোট ১৬টি মূলধারার মাল্টিপ্লেক্সেএকযোগে

বাণিজ্যিকভাবে মুক্তি পেয়েছে মাসুদ হাসান উজ্জ্বলের আলোচিতপ্রেম ও মনস্তত্ত্বের সিনেমা ‘ঊনপঞ্চাশ বাতাস’। এর মধ্যে টাইমস স্কয়ার এরফ্ল্যাগশিপ থিয়েটার Regal E-Walk 4DX & RPX ও আছে। কানাডায়সিনেমাটি মুক্তি পেয়েছে ‘সিনেপ্লেক্স’ এর ‘এগলিন্টন টাউন সেন্টার (টরন্টো)’ ও ‘সিনেমা সিটি নর্থ গেইট (উইনিপেগ)’ লোকেশন ২টিতে।বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বাংলাদেশি সিনেমার বিশ্ব পরিবেশক প্রতিষ্ঠান স্বপ্নস্কেয়ারক্রো এর প্রধান মোহাম্মদ অলিউল্লাহ সজীব। তিনি বলেন, “কানাডাও আমেরিকায় একযোগে ১৬টি মাল্টিপ্লেক্সে বাণিজ্যিকভাবে মুক্তি পাওয়াবাংলাদেশী সিনেমার জন্য একটি বিশাল রেকর্ড। এর আগের রেকর্ডটি ছিলএকসাথে ৮টি মাল্টিপ্লেক্সে মুক্তি পাওয়ার।“

টাইমস স্কয়ার ছাড়াও নিউইয়র্ক এর আরো ৩টি থিয়েটারে মুক্তি পেয়েছে‘ঊনপঞ্চাশ বাতাস’। এ্টিও একটি রেকর্ড। থিয়েটারগুলো হলঅ্যাস্টোরিয়ার Regal UA Kaufman Astoria & RPX, জ্যামাইকারJamaica Multiplex Cinemas এবং বেলমোর এর Bellmore Playhouse। এছাড়া লস এঞ্জেলেস, ইউনিয়ন সিটি (বে এরিয়া), ডালাস, প্ল্যানো, অস্টিন, হিউস্টন, ওয়েস্ট পাম বিচ, নর্থ মিয়ামি, ফেয়ারফেক্স, হ্যানোভার এর ১টি করে‘সিনেমার্ক’ থিয়েটারে মুক্তি পেয়েছে ‘ঊনপঞ্চাশ বাতাস’।

- Advertisement -

কানাডা ও আমেরিকায় এমন রেকর্ড মুক্তি নিয়ে দারুণ উচ্ছ্বসিত নির্মাতামাসুদ হাসান উজ্জ্বল । তিনি বলেন, “আমরা একটি ভালো চলচ্চিত্রবানানোর চেষ্টা করেছি। স্বপ্ন স্কেয়ারক্রো সেটিকে উত্তর আমেরিকা তথাপৃথিবীর সেরা সব থিয়েটারে অনেক বড় পরিসরে মুক্তি দিয়েছে। এবারদর্শকদের পালা। তারা যদি দলে দলে থিয়েটারে যান তাহলে বিশ্ববাজারেবাংলাদেশী সিনেমার অগ্রযাত্রা সময়ের ব্যাপার মাত্র।“

ছবিতে রোমান্টিক জুটি হিসেবে অভিনয় করা ইমতিয়াজ বর্ষণ এবং শার্লিনফারজানাও বিশ্ববাজারে এমন বিশাল মুক্তি নিয়ে উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেছেন। ইমতিয়াজ বর্ষণ বলেন, “বাংলাদেশের দর্শকের ভালোবাসা পেয়েছি। এবারআপনাদের ভালোবাসা চাই। আপনারা যারা ‘ঊনপঞ্চাশ বাতাস’ দেখবেনতাদের জানাই অফুরান ভালোবাসা।“ শার্লিন বলেন,”আমি নিশ্চিত উত্তরআমেরিকার দর্শকেরা কাঁদবেন, ভাববেন নীরা আর অয়নের জন্য। তাদেরপ্রেম ও পাগলামির জন্য।“

বিশ্ব পরিবেশক মোহাম্মদ অলিউল্লাহ সজীব বলেন, “আমাদের উদ্দেশ্যকানাডা ও আমেরিকায় মুক্তি পেতে যাওয়া বাংলাদেশের প্রতিটি চলচ্চিত্রনিয়মিত অন্তত ১ লাখ দর্শককে দেখানো। এজন্য এখানকার কমপক্ষে১০০টি মাল্টিপ্লেক্সে আমাদের প্রতিটি সিনেমা মুক্তি দিতে হবে যাতে সবাইতাদের পাশের থিয়েটারে গিয়ে সিনেমাটি দেখতে পারে। ‘ঊনপঞ্চাশ বাতাস’ দিয়ে কোভিড পরবর্তী সময়ে শুরুটা করছি কানাডা-আমেরিকার ১৬টি থিয়েটার দিয়ে। এই সংখ্যা ক্রমশ বাড়তে বাড়তে ২০২২ এর কোনও সিনেমাদিয়ে শতকের মাইল ফলক ছুঁতে পারবো বলে আমরা বিশ্বাস করি। হলিউডও ইন্ডিয়ান সিনেমার পর তৃতীয় বৃহত্তম ইন্ডাস্ট্রি হয়ে গড়ে উঠতে এভাবেইআমরা এগিয়ে যাবো।“

‘ঊনপঞ্চাশ বাতাস’ স্বপ্ন স্কেয়ারক্রো এর পরিবেশনায় ১৫ নম্বর সিনেমা। স্বপ্নস্কেয়ারক্রো বাংলাদেশ এর প্রধান নির্বাহী সৈকত সালাহউদ্দিন জানালেন,“২০২২ সালে বাংলাদেশের সাথে একইদিনে উত্তর আমেরিকায় মুক্তির জন্যপ্রস্তুত হচ্ছে দেশের বড় বড় সব সিনেমা।“

- Advertisement -

Latest Posts

Don't Miss

Stay in touch

To be updated with all the latest news, offers and special announcements.