বৃহস্পতিবার, আগস্ট ১৮, ২০২২
27.2 C
Toronto

Latest Posts

ডা. আলেক্সান্ডার বাস্তিয়ানি : কানাডার প্রথম কৃষ্ণাঙ্গ নারী ইন্টারভেনশনাল কার্ডিওলজিস্ট

- Advertisement -
ইন্টারভেনশনাল কার্ডিওলজিস্ট ডা. আলেক্সান্ডার বাস্তিয়ানি…ছবি/ রন ফ্যান ফেয়ার

সোমবার ছিল ব্ল্যাক হিস্টরি মান্থ-এর প্রথম দিন। ওইদিনই সিটিভি নিউজের সঙ্গে কথা বলেন কানাডার প্রথম কৃষ্ণাঙ্গ নারী ইন্টারভেনশনাল কার্ডিওলজিস্ট ডা. আলেক্সান্ডার বাস্তিয়ানি। যদিও কার্ডিওলজির এ শাখাটিতে কাজ শুরু করেছিলেন আরও আগেই। ঠিক সেই সময় যখন বাস্তিয়ানি নিজেও জানতে না যে, তিনি এ খাতের রোল মডেল।

ইন্টারভেনশনাল কার্ডিওলজি হচ্ছে কার্ডিওলজির বিশেষ একটি শাখা। শাখাটিতে বিশেষজ্ঞ হতে হৃদপিন্ডের অবস্থা নিয়ে অতিরিক্ত বেশ কয়েক বছর পড়াশোনা ও প্রশিক্ষণের প্রয়োজন হয়।

- Advertisement -

বাস্তিয়ানি বলছিলেন, আমার জন্য এটা সত্যিই গর্বের। অনেকটা পরাবস্তবতার মতো। কারণ, আমি নিজেও জানতাম না যে, আমিই কানাডার প্রথম কৃষ্ণাঙ্গ নারী ইন্টারভেনশনাল কার্ডিওলজিস্ট। বিষয়টি এ খাতের জন্য নজির হয়ে থাকবে। অন্য কৃষ্ণাঙ্গ নারীদের জন্য এটি পথ দেখাবে।

বাস্তিয়ানির বাবা-মা কানাডায় এসেছিলে হাইতি থেকে। বাস্তিয়ানির পড়ালেখার ব্যাপারে তারা বেশ কঠোর ছিলেন। তবে মেডিসিন নিয়ে পড়ালেখার ক্ষেত্রে তাকে বেশি অনুপ্রেরণা দিয়েছে তার ছোট ভাই।

বাস্তিয়ানির ভাষায়, আমার ছোট ভাই-ই আমাকে কার্ডিওলজি নিয়ে পড়তে বেশি উৎসাহ দিয়েছিল। কারণ, আমাদের আঙ্গিনার প্রাণিগুলো সব সময়ই খুঁজে বেড়াতো আমার চোখ। ছোটবেলা থেকেই অনেক কিছু কাটাছেড়াও করতাম।

বাস্তিয়ানির বাবা-মা সব সময় একটা কথাই বলতেন। তা হলো, তারা যেহেতু সংখ্যালঘু তাই একটি ডিগ্রি সামাজিক অসাম্যতা থেকে তাকে সুরক্ষা দেবে। ডিগ্রিটি বাস্তিয়ানি অর্জন করেছেন। তারপরও নানা প্রতিবন্ধকতা তাকে মোকাবেলা করতে হচ্ছে এখনও। রোগী এমনকি অন্য সহকর্মীরাও অনেক সময় তাকে নার্স ভেবে ভুল করেন।

বাস্তিয়ানি বলছিলেন, পুরুষ নিয়ন্ত্রিত বিশে^ একদিকে নারী অন্যদিকে কৃষ্ণাঙ্গ। অর্থাৎ দ্বৈত সংখ্যালঘুর পরিচয় নিয়ে কাজ করাটা সত্যিই খুব কঠিন।

গত ডিসেম্বরে কানাডিয়ান কার্ডিওভাসকুলার সোসাইটির একটি ভিডিও চিত্রের উদাহরণ দিয়ে তিনি বলেন, আমরা একই ক্ষেত্রে কাজ করছি অথচ অন্যরা আমাকে উপেক্ষা করছেন। অভিজ্ঞতাগুলো বিনিময় করতে পারি, এমন কাউকে খুঁজে পাওয়াও মুশকিল।

তবে আরও বেশি সংখ্যক নারী এ খাতে এগিয়ে এলে পরিস্থিতি একদিন বদলাবে বলে আশা করেন বাস্তিয়ানি। সাম্প্রতিক মাসগুলোতে যদিও অনেকেই তাকে রোল মডেল হিসেবে দেখছেন, তবে বাস্তিয়ানি নিজেকে তরুণ কৃষ্ণাঙ্গ নারীদের পরামর্শক হিসেবে ভাবতেই বেশি ভালোবাসেন।

আমি যেটা চাই, তা হলো ভবিষ্যৎ প্রজন্মকে সহায়তা করা,Ñবলছিলেন ডা. আলেক্সান্ডার বাস্তিয়ানি।

- Advertisement -

Latest Posts

Don't Miss

Stay in touch

To be updated with all the latest news, offers and special announcements.