বুধবার, মে ২৫, ২০২২
12 C
Toronto

Latest Posts

জাহাজ ভাড়ায় বাড়তি ৭১ মিলিয়ন ডলার গুণতে হবে নৌবাহিনীকে

- Advertisement -
ফাইল ছবি

জাহাজ এমভি অ্যাস্টারিক্স পরিকল্পনার চেয়ে বেশি ব্যবহারের কারণে ভাড়া বাবদ অতিরিক্ত ৭১ মিলিয়ন ডলার গুণতে হবে রয়্যাল কানাডিয়ান নেভিকে। কুইবেকের ডেভি শিপবিল্ডিংয়ের সহযোগী প্রতিষ্ঠান ফেডারেল ফ্লিট সার্ভিসেসের কাছ থেকে জাহাজটি ভাড়া নিয়েছে নৌবাহিনী এবং ২০১৮ সাল থেকে এটি কার্যক্রমে আছে।

অ্যাস্টারিক্স রিফুয়েলিং জাহাজ এবং বাণিজ্যিক জাহাজকে রূপান্তরের মাধ্যমে এমনটা করা হয়েছে। ৬২০ মিলিয়ন ডলারের ভাড়ায় পাঁচ বছরের জন্য এটি ব্যবহার করতে ডেভির সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ হয়েছে নৌবাহিনী। কিন্তু তারা যেহেতু জাহাজটি প্রায়শই ব্যবহার করছে তাই ভাড়ার পরিমাণও বাড়বে। ভাড়া বেড়ে ৬৯১ মিলিয়ন হবে বলে জানিয়েছেন ন্যাশনাল ডিফেন্সের মুখপাত্র ড্যান লি বোথিলিয়ের।

- Advertisement -

রয়্যাল কানাডিয়ান নেভি দুটি সাহায্যকারী জাহাজ সরবরাহ পাওয়ার অপেক্ষায় আছে। ভ্যানকুভারের সিস্প্যানে এগুলো নির্মিত হচ্ছে। প্রথম জাহাজটি ২০১৭ সালে সরবরাহ করার কথা ছিল। কিন্তু ২০১৮ সাল পর্যন্ত এটির নির্মাণই শুরু হয়নি। নির্মাণ শেষে ২০২৩ সালে জাহাজটির সরবরাহ পাওয়া যাবে বলে আশা করা হচ্ছে। দ্বিতীয় জাহাজটি বুঝে পাওয়া যাবে ২০২৫ সালে।

শুরুর দিকে প্রকল্পটিতে ২ দশমিক ৩ বিলিয়ন ডলার ব্যয় হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু এটির ব্যয় বেড়ে ৪ দশমিক ৩ বিলিয়ন ডলারে দাঁড়িয়েছে বলে গত বছর জানা যায়। যদিও ব্যয় বাড়তে পারে বলে সাত বছর আগেই ধারণা করেছিলেন সংসদীয় বাজেট কর্মকর্তা। প্রকল্পটিতে ৪ দশমিক ১৩ বিলিয়ন ডলার খরচ হতে পারে বলে সে সময় সতর্ক করেছিলেন তিনি। জাহাজ দুটির সরবরাহ পেতে বিলম্ব হওয়ায় অ্যাস্টারিক্সকে ব্যবহার করতে হচ্ছে রয়্যাল কানাডিয়ান নেভিকে।

অ্যাস্টারিক্স ভাড়া নেওয়ার সঙ্গে জড়িত ছিলেন ভাইস অ্যাডমিরাল মার্ক নরম্যান। একে কেন্দ্র করে তার বিরুদ্ধে বিশ^াস ভঙ্গের অভিযোগ আনে রয়্যাল কানাডিয়ান মাউন্টেড পুলিশ। দুই বছর ধরে আইনী লড়াইয়ের পর ২০১৯ সালে বিষয়টির নিস্পত্তি হয় এবং এই কর্মকর্তাকে মোটা আর্থিক ক্ষতিপূরণও দিতে হয় সরকার। পাশাপাশি মামলাটি যে রাজনৈতিক উদ্দেম্যপ্রণোদিত ছিল লিবারেল সরকার সম্পর্কে জনমনে সে ধারণাও তৈরি হয়।

অ্যাস্টারিক্স ভাড়ার চুক্তিটি ২০২৩ সালে শেষ হওয়ার কথা রয়েছে। তবে ন্যাশনাল ডিফেন্স চাইলে এটি বর্ধিত করতে পারবে। যদিও চুক্তির মেয়াদ বাড়ানো হবে কিনা সে-সংক্রান্ত কোনো সিদ্ধান্ত সরকারের তরফ থেকে এখন পর্যন্ত নেওয়া হয়নি।

- Advertisement -

Latest Posts

Don't Miss

Stay in touch

To be updated with all the latest news, offers and special announcements.