বুধবার, মে ২৫, ২০২২
12 C
Toronto

Latest Posts

ডেল্টা ভ্যারিয়েন্ট আতঙ্ক

- Advertisement -
অন্টারিও জনস্বাস্থ্য বিভাগের অ্যাসোসিয়েট চিফ মেডিকেল অফিসার ডা. বারবারা ইয়াফি

অন্টারিওতে আধিপত্যকারী ভ্যারিয়েন্ট হওয়ার পথে রয়েছে ভারতে সনাক্ত হওয়া অতি সংক্রামক ডেল্টা ভ্যারিয়েন্ট। তবে আশার কথা হলো ভ্যারিয়েন্টটির বিরুদ্ধে ভ্যাকসিনের কার্যকারিতা আগের ধারণার চেয়েও বেশি প্রমাণিত হয়েছে।

অন্টারিও জনস্বাস্থ্য বিভাগের অ্যাসোসিয়েট চিফ মেডিকেল অফিসার ডা. বারবারা ইয়াফি সোমবার এক সংবাদ সম্মেলনে বলেন, হ্যা, এটা সত্যি যে অন্টারিওতে ডেল্টা ভ্যারিয়েন্টের দ্রুত বিস্তার ঘটছে।

- Advertisement -

সার্বিকভাবে কোভিড-১৯ আক্রান্তের সংখ্যা কমে এলেও মোট আক্রান্তদের মধ্যে ডেল্টা ভ্যারিয়েন্টের অংশ বাড়ছে। ব্রিটেনে প্রথম সনাক্ত হওয়া আলফা ভ্যারিয়েন্ট এতোদিন অন্টারিওতে আধিপত্যকারী ভ্যারিয়েন্ট হলেও দ্রুত সে জায়গা নিচ্ছে ডেল্টা ভ্যারিয়েন্ট।

ইয়াফি বলেন, আলফা ভ্যারিয়েন্ট দ্রুত কমছে, অন্যদিকে ডেল্টা ভ্যারিয়েন্ট দ্রুত বাড়ছে। এর ফলে ডেল্টা ভ্যারিয়েন্ট আধিপত্যকারী ভ্যারিয়েন্ট হয়ে উঠবে বলে আমরা ধারণা করছি। ডেল্টা ভ্যারিয়েন্ট আলফা ভ্যারিয়েন্টের চেয়ে দেড় গুণ বেশি সংক্রামক বলেও ইঙ্গিত দেন তিনি।

গবেষণার তথ্য অনুযায়ী, ডেল্টা ভ্যারিয়েন্টের বিরুদ্ধে ভ্যাকসিনের প্রথম ডোজ ৩৩ শতাংশ কার্যকর। তবে নতুন গবেষণায় আগের ধারণার চেয়ে বেশি কার্যকর প্রমাণিত হয়েছে বলে সোমবার জানান ইয়াফি। তিনি বলেন, প্রকৃতপক্ষে ডেল্টা ভ্যারিয়েন্টের বিরুদ্ধে এমআরএনএ ভ্যাকসিন ৪৭ থেকে ৪৮ শতাংশ কার্যকর। গুরুতর অসুস্থতা থেকেও এক ডোজ ভালোই সুরক্ষা দিয়ে থাকে।

ডেল্টা ভ্যারিয়েন্ট নতুন গবেষণা এ সপ্তাহে প্রকাশ করেছে পাবলিক হেলথ ইংল্যান্ড। গবেষণার ফল বলছে, ফাইজারের এক ডোজ ভ্যাকসিন নেওয়া হলে হাসপাতালে ভর্তির হার কমে ৯৪ শতাংশ। আর অ্যাস্ট্রাজেনেকা হাসপাতালে ভর্তির ঝুঁকি কমায় ৭১ শতাংশ।

ইয়াফি বলেন, দুই ডোজ এমআরএনএ ভ্যাকসিন সিম্পটোমেটিক কোভিড-১৯ এর বিরুদ্ধে ৮৮ থেকে ৯০ শতাংশ কার্যকর। এক্ষেত্রে অ্যাস্ট্রাজেনেকার ভ্যাকসিনের কার্যকারিতা ৬০ থেকে ৭০ শতাংশ।

এ কারণেই  প্রথম ডোজ হিসেবে অ্যাস্ট্রাজেনেকা এবং দ্বিতীয় ডোজ হিসেবে গ্রহীতার পছন্দ অনুযায়ী যেকোনো একটি ভ্যাকসিনের মধ্যকার সময়ের ব্যবধান কমিয়ে আনা হচ্ছে বলে জানান ইয়াফি। অন্টারিও প্রথমে দুই ডোজের মধ্যকার ১৬ সপ্তাহ নির্ধারণ করলেও বর্তমানে দ্বিতীয় ডোজের সময় এগিয়ে আনা হয়েছে। পর্যাপ্ত সরবরাহ থাকায় এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এছাড়া যারা প্রথম ডোজ হিসেবে যারা অ্যাস্ট্রাজেনেকার ভ্যাকসিন নিয়েছেন চাইলে তারা দ্বিতীয় ডোজ হিসেবে যেকোনো একটি এমআরএন ভ্যাকসিন নিতে পারবেন। অ্যাস্ট্রাজেনেকার প্রথম ডোজ গ্রহীতাদের এখন দ্বিতীয় ডোজের জন্য অপেক্ষাও করতে হবে আট সপ্তাহ। আগে যেখানে ১২ সপ্তাহ অপেক্ষা করতে হতো।

- Advertisement -

Latest Posts

Don't Miss

Stay in touch

To be updated with all the latest news, offers and special announcements.