মঙ্গলবার, জুলাই ৫, ২০২২
24.6 C
Toronto

Latest Posts

ইউক্রেন ইস্যুতে কানাডার সমালোচনা

- Advertisement -

ইউক্রেন-রাশিয়া সংকটকে ঘিরে কানাডার পদক্ষেপ নিয়ে সমালোচনার সৃষ্টি হয়েছে

ইউক্রেন-রাশিয়া সংকটকে ঘিরে কানাডার পদক্ষেপ নিয়ে সমালোচনার সৃষ্টি হয়েছে। এই ইস্যুতে কানাডার অবস্থানকে নমনীয় ও কৃত্রিম বলে অভিযোগ করছেন অনেকে।

সমালোচনাটি যে কেবল কনজার্ভেটিভ পার্টির তরফ থেকে এসেছে তা নয়, ইউরোপে কানাডার সাবেক বিশ্লেষকও একই সমালোচনা করেছেন। ইউক্রেনের বংশোদ্ভুত কানাডিয়ানদের কাছ থেকেও চাপের মুখে রয়েছে ট্রুডোর সরকার। কিয়েভে ইউক্রেনের নেতৃত্ব যেসব অনুরোধ জাস্টিন ট্রুডো ও পররাষ্ট্রমন্ত্রী মেলানি জোলিকে করেছেন সেগুলোই আরও জোরেশোরে বলছেন ইউক্রেনে বংশোদ্ভুত কানাডিয়ানরা। এসব অনুরোধের মধ্যে আছে, ইউক্রেনের সেনাবাহিনীকে অস্ত্র জোগান দেওয়া, রাশিয়ার ওপর অধিকতর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা এবং মার্চের পরও ইউক্রেনের সেনাবাহিনীকে কানাডার প্রশিক্ষণ চালিয়ে যাওয়া।

- Advertisement -

অনুরোধগুলোর অভ্যন্তরীণ রাজনৈতিক ইঙ্গিত আছে। কারণ, ইউক্রেনের বংশোদ্ভুত যে ১৪ লাখ মানুষ কানাডায় বসবাস করে অভ্যন্তরীণ রাজনৈতিক ইস্যুতে তাদের প্রভাব লক্ষণীয়।

অরগানাইজেশন ফর সিকিউরিটি অ্যান্ড কো-অপারেশন ইন ইউরোপের মুখপাত্রের দায়িত্ব পালনকারী কানাডিয়ান নাগরিক মাইকেল বোকিউরকি বলেন, ইউক্রেনের সবচেয়ে ঘনিষ্ঠ মিত্র বলে দাবি করা দেশ হিসেবে এই ইস্যুতে কানাডার পররাষ্ট্রমন্ত্রীর নমনীয় মনোভাব ও নড়বড়ে কথাবার্তা বোধগম্য নয়। ‘আমরা গভীরভাবে উদ্বিগ্ন’ জাতীয় কথাবার্তা অধিকাংশ ইউক্রেনিয়ান কানাডিয়ানের ক্ষোভের সঙ্গে ঠিক যায় না। এটা অনভিপ্রেত। কারণ, অস্ত্র সরবরাহসহ অন্যান্য ব্যাপারে সুনির্দিষ্ট সহায়তা প্রদানের মতো অবস্থানে কানাডা রয়েছে। ইউক্রেনে কানাডিয়ান সশস্ত্র বাহিনীর সদস্য, আরসিএমপির কর্মকর্তা এবং বিভিন্ন কূটনীতিক ও উন্নয়ন বিশেষজ্ঞ মোতায়েনের কারণেই এ অবস্থান তৈরি হয়েছে।

ট্যাংক ও ভারী অস্ত্রশস্ত্রসহ প্রায় এক লাখ সৈন্য ইউক্রেন সীমান্তে মোতায়েন করেছে রাশিয়া। এর ফলে রাশিয়ার আগ্রাসনের ব্যাপারে ইউরোপজুড়ে আতঙ্ক তৈরি হয়েছে। যদিও রাশিয়া তা অস্বীকার করেছে। সোমবার হোয়াইট হাউজের সিচুয়েশন রুম থেকে ইউরোপের গুরুত্বপূর্ণ নেতাদের সঙ্গে প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের বৈঠকে ট্রুডোর অনুপস্থিতি নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে কনজার্ভেটিভ পার্টি।

কনজার্ভেটিভ এমপি জেমস বেজান এক টুইটে বলেছেন, জাস্টিন ট্রুডো জো বাইডেনের সঙ্গে বৈঠকে অংশগ্রহণকারীদের তালিকায় নেই। ইউক্রেনের পাশে দাঁড়াতে ব্যর্থতার ফল এটা।

উল্লেখ্য, ইউক্রেনের পক্ষে বলিষ্ঠ সমর্থনের কারণে তার ওপর রাশিয়া ভ্রমণে নিষেধাজ্ঞা রয়েছে।

- Advertisement -

Latest Posts

Don't Miss

Stay in touch

To be updated with all the latest news, offers and special announcements.