মঙ্গলবার, ২২ জুন ২০২১, ৮:৩৪ am

বর্ণবাদের বিরুদ্ধে টরন্টোর এশীয় কমিউনিটির বিক্ষোভ

বর্ণবাদের বিরুদ্ধে টরন্টোর এশীয় কমিউনিটির বিক্ষোভ

কানাডাজুড়ে এশীয়দের প্রতি বিদ্বেষ বাড়ছে...ছবি/সাসকাটুন সিটি

এশীয়দের প্রতি বর্ণবাদের বিরুদ্ধে সচেতনতা তৈরিতে টরন্টোর নাথান ফিলিপস স্কয়ারে রোববার বিক্ষোভ সমাবেশ করেছে এশীয় কমিউনিটি ও তাদের মিত্ররা। এ মাসের গোড়ার দিকে আটলান্টায় এশিয়ান-আমেরিকানদের লক্ষ্য করে গুলিবর্ষণের পর এ সমাবেশের আয়োজন করে তারা।

বিক্ষোভের আয়োজকরা বলেন, ১৬ মার্চের ওই ঘটনায় তারা ক্ষুব্ধ ও ব্যথিত। ওই দিন রবার্ট অ্যারন লং নামে একজন আটলান্টার দুটি স্পাতে চারজনকে এবং এর ৫০ কিলোমিটার দূরে একটি ম্যাসাজ সেন্টারে আরও চারজনকে গুলি করে হত্যা করে। নিহত আটজনের মধ্যে ছয়জন ছিলেন এশীয় বংশোদ্ভূত। অ্যারন লং হত্যাকা-ের কথা স্বীকার করেছেন বলে জানিয়েছেন তদন্তকারীরা।

এক সংবাদ বিবৃতিতে আয়োজকদের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, চলমান বিদ্বেষ, বর্ণবাদের কারণে যেসব এশিয়ান-আমেরিকান ও এশিয়ান-কানাডিয়ান আতঙ্কের মধ্যে আছেন, আমরা তাদের পাশে আছি। ম্যাসাজ পার্লারের কর্মী ও যৌন কর্মীদের বিরুদ্ধে যে সামাজিক বৈষম্য তার বিরুদ্ধেও আমরা অবস্থা নিয়েছি।

 রোববারের সমাবেশের আয়োজনকারী পাঁচটি সংগঠনের অন্যতম চাইনিজ কানাডিয়ান ন্যাশনাল কাউন্সিল। কানাডাজুড়ে এশীয়দের প্রতি বিদ্বেষ যে বাড়ছে সেটা তারা তুলে ধরে সমাবেশে।

চাইনিজ অ্যান্ড সাউথইস্ট এশিয়ান লিগ্যাল ক্লিনিকের পরিচালক (ক্লিনিক) অ্যাভি গো বলেন, এসব বর্ণবাদি ঘটনার ফলাফল অনেক গভীর এবং এশিয়ান কানাডিয়ান কমিউনিটির ওপর এর প্রভাবটা দীর্ঘমেয়াদী। প্রধানমন্ত্রী থেকে শুরু করে সব সংসদ সদস্যের অ্যান্টি-এশিয়ান বর্ণবাদের বিরুদ্ধে অবস্থান নেওয়া জরুরি। আমরা চাই এ ব্যাপারে সুনির্দিষ্ট পদক্ষেপ।

রোবাবারের সমাবেশে অংশগ্রহণকারীদের একজন জেসিকা লি। তিনি বলেন, যখন আমরা এই মানুষগুলোকে হামলার শিকার হতে দেখি তখন আমিও একইভাবে ব্যথা পাই। মনে হয় আমিও আক্রান্ত। ঘৃণা ছাড়ানো যে ঠিক নয়, বর্ণবাদ যে উচিত নয় সেটা জানাতেই আমরা আজ এখানে। 

 

 

Comments