রবিবার, ১১ এপ্রিল ২০২১, ১:১৬ am

তৃতীয় ঢেউ এড়াতে যা করণীয়

তৃতীয় ঢেউ এড়াতে যা করণীয়

ফাইল ছবি

আগ্রাসী ভ্যাকসিনেশনের পাশাপাশি স্টে-অ্যাট-হোম আদেশ পরিপালনের মাধ্যমে সংক্রমণের তৃতীয় ঢেউ ও আরেকটি লকডাউন এড়ানো সম্ভব বলে মনে করছেন জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা। অন্টারিও সরকার প্রদেশের বেশিরভাগ অংশের বিধিনিষেধ শিথিল করতে যাওয়ার পরিপ্রেক্ষিতে এ পরামর্শ দিয়েছেন তারা।

প্যান্ডেমিক সায়েন্স অ্যাডভাইজরি গ্রুপ বলেছে, প্রদেশজুড়ে লকডাউন ও স্টে-অ্যাট-হোম আদেশের মতো জনস্বাস্থ্য সম্পর্কিত বিধি অন্টারিওতে কোভিড-১৯ এর সংক্রমণ, হাসপাতালে রোগী ভর্তি ও সনাক্তের হার কমিয়ে আনতে ভূমিকা রেখেছে। তবে গ্রুপের কো-চেয়ার ডা. অ্যাডালস্টেইন ব্রাউনের মতে, করোনাভাইরাসের নতুন ভ্যারিয়েন্ট ক্রমেই ছড়িয়ে পড়ছে এবং বর্তমানে মোট সনাক্ত রোগীর ৫ থেকে ১০ শতাংশ নতুন ভ্যারিয়েন্টে সংক্রমিত। এর ফলে ফেব্রুয়ারির শেষ নাগাদ সনাক্তের সংখ্যা আবারও বেড়ে যেতে পারে। এ কারণেই স্টে-অ্যাট-হোম আদেশের মতো জনস্বাস্থ্য বিধি পরিপালন ও ঝুঁকিতে থাকা জনগোষ্ঠীকে ভ্যাকসিনেশনের আওতায় আনা গুরুত্বপূর্ণ।  

সংক্রমণের হার কম থাকা তিনটি অঞ্চলে সরকার স্টে-অ্যাট-হোম আদেশ প্রত্যাহারের মাধ্যমে অর্থনৈতিক কর্মকা- খুলে দেওয়া শুরু করার পরদিন এ ঘোষণা দিল প্যান্ডেমিক সায়েন্স অ্যাডভাইজরি গ্রুপ। গ্রেটার টরন্টো এরিয়ার তিনটি হটস্পট বাদে প্রদেশের বাকি অংশের বিধিনিষেধও এ সপ্তাহে তুলে নেওয়ার ঘোষণা দেওয়া হয়েছে। তবে টরন্টো, পিল ও ইয়র্ক রিজিয়নের স্টে-অ্যাট-হোম আদেশ অন্তত ২২ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত বলবৎ থাকবে।

অন্টারিও জনস্বাস্থ্য বিভাগের চিফ মেডিকেল অফিসার ডা. ডেভিড উইলিয়ামস বলেছেন, অর্থনৈতিক কর্মকা- পর্যায়ক্রমে চালু করা মানে স্বাস্থ্যবিধি একেবারে উঠিয়ে নেয়া, এমনটা ভাবা ঠিক হবে না। নাগরিকদের এখনও যতটা সম্ভভ বাড়িতে থাকার আহ্বান জানানো হচ্ছে। সে সঙ্গে মাস্ক পরিধান ও শারীরিক দূরত্ব বজায় রাখার বিধান কঠোরভাবে মেনে চলার অনুরোধ জানানো হচ্ছে। আমরা বিপজ্জনক সময়ের মধ্যে আছি। দরজা উন্মুক্ত রাখার মতো সময় এটা নয়।

এদিকে ধারাবাহিকভাবে অর্থনৈতিক কর্মকা- খুলে দেওয়ার সিদ্ধান্ত স্থগিতের পাশাপাশি লকডাউনের মেয়াদ বাড়াতে অন্টারিওর প্রিমিয়ার ডগ ফোর্ডের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন এনডিপি নেতা আন্দ্রিয়া হরওয়াথ। আর সরকারের অর্থনৈতিক কর্মকা- খুলে দেওয়ার সিদ্ধান্তকে অ্যাডভাইজরি গ্রুপের প্রক্ষেপণের বিপরীত বলে মন্তব্য করেছেন গ্রিন পার্টির নেতা মাইক শ্রেইনার।   

 

 

 

Comments