Sat 28th Nov 2020, 2:33 am

ভ্যাকসিন আসছে!

ভ্যাকসিন আসছে!

বাংলামেইল ডটকম ডেস্ক

২০২১ সালের প্রথম প্রান্তিকে নিরাপদ ও কার্যকর ভ্যাকসিন সরবরাহ করা সম্ভব হতে পারে বলে আশা করছে কানাডা। ঘোষিত সময়ের মধ্যে যদি ভ্যাকসিন পাওয়াও যায় তা হবে স্বল্প সংখ্যক। ফলে কারা ভ্যাকসিনটি পাবে সে ব্যাপারে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করতে হবে সরকারকে।
কানাডার চিফ পাবলিক হেলথ অফিসার ডা. তেরিসা ট্যাম গত শুক্রবার বলেন, যদিও পর্যায়ক্রমে সরবরাহ বাড়বে, তারপরও প্রথম দফার ভ্যাকসিন কাদেরকে দেওয়া হবে সে ব্যাপারে কেন্দ্রীয়, প্রাদেশিক ও আঞ্চলিক সরকরাগুলোকে গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত নিতে হবে। ভ্যাকসিন পাওয়ার ক্ষেত্রে কারা অগ্রাধিকার পাবেন, চলতি সপ্তাহে প্রকাশিত ন্যাশনাল অ্যাডভাইজরি কমিটি অন ইমিউনাইজেশনের (এনএসিআই) নির্দেশিকা এক্ষেত্রে সহায়ক হতে পারে।
ভ্যাকসিন পাওয়ার ক্ষেত্রে এনএসিআই সবচেয়ে অগ্রাধিকারে রেখেছে বয়স্ক ও উচ্চ ঝুঁকিতে থাকা মানুষদের। এরপর আছে স্বাস্থ্যকর্মী, নার্সিংহোমে সেবা প্রদানকারী এবং সেইসব মানুষ যাদের ভার্চুয়ালি সেবা দেওয়ার সুযোগ নেই যেমনÑপুলিশ, দমকল কর্মী ও দোকানদার। তবে প্রথম ডোজের ভ্যাকসিন কারা পাবেন সে নিয়ে অনেক আলোচনা হবে বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো।
কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন তৈরি হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে যাতে এর প্রয়োগ শুরু করা যায় সেজন্য ভ্যাকসিন প্রস্তুতকারক একাধিক প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে চুক্তি স্বাক্ষর করেছে কানাডা সরকার। অনেক প্রস্তুতকারক আশাব্যঞ্জক ফলাফলও দিচ্ছে। তারপরও ডা. তেরিসা ট্যাম বলেছেন, এসব ভ্যাকসিন যে নিরাপদ ও কার্যকর তা নিশ্চিত করতে আরও গবেষণার প্রয়োজন রয়েছে। কোনো ভ্যাকসিন সরবরাহের আগে কানাডার স্বাস্থ্য বিভাগকে তার কার্যকারিতা মূল্যায়ন করে দেখতে হবে।
হেলথ কানাডা এখন ভ্যাকসিন অনুমোদনের জন্য তিনটি আবেদন পেয়েছে। আবেদনকারী কোম্পানিগুলো হলো যুক্তরাজ্যভিত্তিক অ্যাস্ট্রাজেনেকা, যুক্তরাষ্ট্রের বায়োটেকনোলজি কোম্পানি মর্ডানা এবং যৌথভাবে মার্কিন ফার্মাসিউটিক্যাল জায়ান্ট ফাইজার ও জার্মানির বায়োটেকনোলজি কোম্পানি বায়োনটেক।
অগ্রাধিকার ঠিক করার পাশাপাশি ভ্যাকসিন সরবরাহের জন্য প্রয়োজনীয় অবকাঠামো ও যন্ত্রপাতি নিশ্চিত করার বিষয়েও কাজ করছে সরকার। এসব কাজের মধ্যে আছে সিরিঞ্জের মতো উপকরণ ক্রয় এবং ভ্যাকসিন সংরক্ষণ ও পরিবহনের প্রয়োজনে কোল্ড স্টোরেজ অবকাঠামো তৈরি। কারণ কিছু ভ্যাকসিন অস্বাভাবিক কম তাপমাত্রায় সংরক্ষণ করতে হবে। 

Comments