শনিবার, ১৬ জানুয়ারী ২০২১, ৮:২৮ pm

অন্টারিও দীর্ঘমেয়াদী সেবাগৃহে করোনা মৃত্যুর খবর জানতে পরিবার উদগ্রীব

অন্টারিও দীর্ঘমেয়াদী সেবাগৃহে করোনা মৃত্যুর খবর জানতে পরিবার উদগ্রীব

মোহাম্মদ আলী বোখারী

যদিও জনসমক্ষে তথ্য প্রদানের বিষয়টি নির্ভর করছে প্রতিটি সরকারি সেবাগৃহের উপর, তথাপি অন্টারিও প্রদেশব্যাপি ‘লং-টার্ম কেয়ার হোম’ তথা দীর্ঘমেয়াদী সেবাগৃহে আশ্রিত বয়স্কদের পরিবার-পরিজন করোনাজনিত মৃত্যুর তথ্য জানার দাবি তুলেছেন; কেননা তাতে তাদের কোনোই সুস্পষ্ট ধারণা নেই।

এক্ষেত্রে প্রদেশব্যাপি করোনার প্রার্দুভাব ঘটেছে তেমন সরকারি সেবাগৃহের সংখ্যা ১০৬, যা সংখ্যাগত দিক বিবেচনায় দাঁড়ায় গড়ে ছয়টির মাঝে একটি। তা সত্ত্বেও  নিশ্চিত করে বলা যাচ্ছে না কোথায় কতজন আবাসিক বাসিন্দা কিংবা পরিচর্যায় নিয়োজিত কর্মী আক্রান্ত হয়েছেন।

ইতিমধ্যে টরন্টোর প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা আইলিন ডি ভিলা দ্রæত তথ্য প্রাপ্তির ক্ষেত্রে পরিবার-পরিজনের উদ্বিগ্নতা স্বীকার করে বলেছেন, তার নেতৃত্বাধীন দল তা নিশ্চিতের ক্ষেত্রে যথোপযুক্ত পদক্ষেপ নিয়েছে। তার মতে, ‘এটা সব সময় দ্রুত প্রদান সম্ভবপর হয়ে ওঠে না, যা পরিবারের প্রত্যাশিত।’ সে কথা তিনি গত বৃহস্পতিবার টেলিভিশনে সম্প্রচারিত ভাষ্যে জানিয়েছেন। তার কথা, ‘জেনে রাখুন, আমরা যত দ্রুত সম্ভব তথ্য জানাতে সচেষ্ট।’ 

তথাপি দেখা যাচ্ছে, করোনার প্রার্দুভাব দেখা দিয়েছে প্রদেশের এমন দীর্ঘমেয়াদি ৩৪টি সরকারি সেবাগৃহে আক্রান্ত কিংবা মৃত্যুমুখে পতিত সংখ্যাটি প্রদানে অস্বীকৃতি জানিয়েছে। তাদের কেউ গোপনীয় তথ্য আইনের অজুহাত তুলে ধরেছে, অথবা অন্যরা নিজস্ব নিয়মনীতি প্রদর্শন করেছে।

এছাড়া কিছু দীর্ঘমেয়াদী সেবাগৃহ ধীরপন্থায় পরিবার-পরিজনদের আক্রান্তের বিষয়টি অবহিত করছে, এমনকী ‘শেয়ার্ড রুম’ বা সহভাগিতাপূর্ণ কক্ষে আক্রান্তের বিষয়টিও অবহিত করছে না, কারণ তাতে ব্যক্তিগত স্বাধীকার ক্ষুন্ন হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। 

পহেলা এপ্রিল নাগাদ ইটনভিলের সেবাগৃহে একজন পরিচর্যা কর্মীর আক্রান্তের তথ্য নিশ্চিত হওয়া গেছে। কিন্তু ১২ এপ্রিল অবধি সেখানে ১৪জন মারা গেছেন। এতে গত সপ্তাহে ওই মর্মন্তুদ তথ্যের উন্মোচন অন্টারিও প্রদেশব্যাপি দীর্ঘমেয়াদি সরকারি সেবাগৃহে আশ্রিত বয়স্কদের পরিবার-পরিজনের মাঝে নিদারুণ উৎকন্ঠার সঞ্চার ঘটিয়েছে এবং তাতে তারা করোনাজনিত মৃত্যুর তথ্য জানার দাবি তুলেছেন।       

Comments