বৃহস্পতিবার, ২৮ জানুয়ারী ২০২১, ৬:৪৯ pm

বগুড়া-৬ আসনের উপনির্বাচনে বিএনপি কি প্রার্থী দেবে?

বগুড়া-৬ আসনের উপনির্বাচনে বিএনপি কি প্রার্থী দেবে?

বাংলা মেইল ডটকম ডেস্ক
নির্ধারিত সময়সীমার মধ্যে সংসদে শপথ না নেয়ায় বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের নির্বাচনী আসনটি (বগুড়া-৬) শূন্য ঘোষণা হওয়ায় ওই আসনের উপনির্বাচনে বিএনপি বা তাদের জোট অংশ নিবে কীনা তা নিয়ে চলছে রাজনৈতিক গুঞ্জন। তবে দলীয় ফোরামেই এ বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হবে বলে জানিয়েছেন বিএনপি’র শীর্ষ নেতারা।

 

তাছাড়া, আসনটি বিএনপির হওয়ায় সেখানে ঐক্যফ্রন্টের অন্য শরীকরাও অংশ নিতে অনীহা দেখাচ্ছেন। ঐক্যফ্রন্টের শীর্ষ পর্যায়ে এ নিয়ে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে। মঙ্গলবার দিনগত রাতে সংসদে স্পিকার ড. শিরীন শারমীন চৌধুরী বিএনপি মহাসচিবের নির্বাচনী আসন বগুড়া-৬ কে শূন্য ঘোষণা করেন। স্পিকারের এ ঘোষণার ফলে এখন আসনটিতে উপ-নির্বাচনের ক্ষেত্র তৈরি হয়েছে। এ নিয়ে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর রায় জানান, যেহেতু মহাসচিব শপথ নেননি সেখানে দলের অন্য কেউ উপনির্বাচনে অংশ নেবেন কিনা তা নিয়ে একটা প্রশ্ন রয়ে যাচ্ছে। তবে বিষয়টি নিয়ে দলীয়ভাবে সিদ্ধান্ত নেয়া যেতে পারে। একই বিষয়ে ঐক্যফ্রন্টের নেতা সুব্রত চৌধুরীর বলেছেন, আসনটি বিএনপির হওয়ায় এর উপনির্বাচন নিয়ে তাদের আগ্রহ কম।

 

তিনি বলেন, যেহেতু এই আসনে বিএনপির প্রার্থী ছিল এবং মহাসচিব নিজেই ছিলেন এই আসনে। সুতরাং তারাই সিদ্ধান্ত নিবেন নির্বাচনে যাবে কি যাবে না। মহাসচিব যেখানে নির্বাচিত হয়েও আসন ছেড়ে দিয়েছেন সেখানে মনে হয় না বিএনপি নির্বাচনে যাবে। ঐক্যফ্রন্ট সংগঠনের সাথে কথা বলে সিদ্ধান্ত নিবেন।

 

উল্লেখ্য, একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের প্রায় তিনমাস পর বিএনপির চারজন সদস্য ২৯ এপ্রিল শপথ গ্রহণ করেন। এর আগে বিএনপির নির্বাচিত জাহিদ ২৬ এপ্রিল শপথ প্রহণ করেন। এদিকে, ঐক্যফ্রন্টের মোকাব্বির খান শপথ নেন ২ এপ্রিল আর সুলতান মনসুর শপথ নেন ৭ মার্চ।

 

ইতোমধ্যে বিএনপি ও ঐক্যফ্রন্টের সদস্যদের সংসদে যোগদানকে স্বাগত জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং সংসদের বিরোধীদলীয় নেত্রী বেগম রওশন এরশাদ।

 

তবে, বিএনপি জোটের শরীক বাংলাদেশ জাতীয় পার্টির (বিজেপি) সভাপতি আন্দালিব রহমান পার্থ বিএনপির নির্বাচিত এমপিদের সংসদে যাওয়া নিয়ে তার  ফেসবুক স্ট্যাটাসে মন্তব্যকরেছেন, ‘এটাই পলিটিক্স’ এই কথা বলে কোনো অনৈতিক কর্মকে বৈধতা দেয়া যায় না। ওদিকে,  সংসদে যোগ দেবার পর চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর থেকে নির্বাচিত এমপি এবং বিএনপির অন্যতম যুগ্ম মহাসচিব হারুন অর রশীদ বলেছেন, সংসদে তাদেরকে কথা বলা সুযোগ দেয়া না হলে সময়মত তারা পদত্যাগ করে বেরিয়ে আসার চিন্তা করবেন।

Comments